Search



TVS XL100 5000km riding experiences by Farhana Akhter
2020-02-13 Views: 252
Owned for 1year+   []   Ridden for 1000-5000km


This user provides ratings about this bike


  7 out of 10
Design
Comfort & Control
Fuel Efficient
Service Experience
Value for money

This bike is purchased from Khan Motors, Rajshahi

টিভিএস এক্সএল১০০ ৫,০০০কিমি ব্যবহার অভিজ্ঞতা - ফারহানা আকতার



TVS-XL100-5000km-riding-experiences-by-Farhana-Akhter

আমি ফারহানা আক্তার। বলতে পারেন চাকুরির ক্ষেত্রে যাতায়াতের জন্যই বাইক আমার বেশি প্রয়োজন। শুধু যে চাকুরির কাজে তা ঠিক না আমার বয়সটাও বেশ হয়েছে তাই একটু এদিক ওদিক ঘোরাঘুরি করার কাজেও টিভিএস এক্স এল ১০০ সিসি বাইকটি আমার অতি প্রয়োজনীয় একটি বাহন। এটি আমার জীবনের প্রথম বাইক। আগে এই ধরনের বাইক গুলোতে বাইসাইকেলের মত প্যাডেল সংযুক্ত ছিল কিন্তু বর্তমানে টিভিএস এক্স এল ১০০ সিসি বাইকটির কোন প্যাডেল নাই। তাই এটিকে সম্পূর্ণ বাইক বলা চলে। এটি আমার কাছে বেশ পছন্দের। এই বাইকটি আমি ১ বছর যাবত ব্যবহার করছি এবং ৫০০০ কিমি চালিয়েছি। সকল বাইকেরই ভাল মন্দ দুটো দিক থাকে, ঠিক তেমনি আমার এই বাইকটিরও ভালো মন্দ দিকই রয়েছে। তাই এখন আমি আমার ১ বছরের রাইডিং অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। আশা করি এটি আপনাদের জন্য বেশ উপকারী হবে। আমার বাইকটির ডিজাইন আমার কাছে সুন্দর লেগেছে। তবে এর পাশাপাশি বাইকটির বিল্ড কোয়ালিটি খুব একটা মজবুত মনে হয়নি। ১ বছর ব্যবহার করেই এটি বেশ পুরাতন এর মত মনে হয়। কিন্তু বাইকটির ডিজাইনের গ্রাফিক্সগুলো বেশ সুন্দর। এদিক থেকে আমি ডিজাইন নিয়ে মোটামুটি সন্তুষ্ট, বিল্ড কোয়ালিটির দিক থেকে নয়। আমি তেমন স্পীডে বাইক চালাই না তবুও বেশি গতিতে থাকলেও বাইকটি কন্ট্রোল করা আমার কাছে সহজ বলে মনে হয়েছে এবং এই বাইকটি তেমন স্লীপ খায় না। তবে বেশি গতিতে উঠালে বাইকটি ভাইব্রেশন করে। বাইকটির শকাপ গুলোও বেশ ভালো খেলে আর তাই আমি তেমন কোন ঝাঁকুনি অনুভব করিনা। বাইকটির হ্যান্ডেলবারের ডান দিকের ক্লাস চাপলে সামনের চাকায় এবং বাম দিকের ক্লাস চাপলে পিছনের চাকায় ব্রেক হয়। বাইকটিতে সেল্ফ নেই, শুধুমাত্র কিক স্টার্ট সিস্টেম রয়েছে। আমার টিভিএস এক্স এল বাইকটির ইঞ্জিন পারফমেন্স খুব ভাল পাচ্ছি। প্রথম থেকেই বাইকটি আমাকে মোটামুটি ভাল সার্ভিস দিয়ে আসছে। সমস্যা হলো সার্ভিসিং সেন্টারে এর পার্টস এর দাম অনেক বেশি। কিন্তু বাহিরের দোকানে পার্টসের দাম খুব কম। সেজন্য এখন আমি এই বাইকটি ব্যবহার করে স্বাচ্ছন্দবোধ করছি না। এছাড়া এর সিটিং পজিশন বেশ ভালো। এর গিয়ার দিতেও কোন সমস্যা হয় না কারণ এর সব কিছু হাতের মাধ্যমেই করা যায়।

ভাল দিকঃ
-বাইকটি চালানো খুব সহজ।
-এর গ্রাফিক্স ডিজাইন গুলো সুন্দর।
-তেল খরচ কম।
-ইঞ্জিন শক্তিশালী এবং ইঞ্জিনের পারফর্মেন্স চমৎকার।
-ব্রেকিং সিস্টেমটি খুব সহজ।
-সিটিং পজিশন বড়।
-দাম কম।

মন্দ দিকঃ
-বেশি গতিতে ভাইব্রেশন করে।
-বিল্ড কোয়ালিটি মজবুত না।
-সেল্ফ স্টার্ট সিস্টেম নেই।
-এর পার্টসের দাম অনেক বেশি।
-সার্ভিসিং সেন্টারে কাজের মান ভাল না।
-স্টার্ট দিতে অনেক কষ্ট হয়।

মাইলেজ সিটিঃ ৪৫ কিমি।
মাইলেজ হাইওয়েঃ ৫৫ কিমি।







আমি এই বাইকটির দাম নিয়ে সন্তুষ্ট কারণ বাজারের অন্য ১০০ সিসি বাইকের তুলনায় এর দামটা বেশ কম। আর তার চেয়েও বড় কথা হলো এই বাইকটি একটু বয়স্ক অর্থাৎ আমার মত ব্যক্তিদের এবং সকল মহিলাদের জন্য একদম পারফেক্ট। বাইকটি দেখতে যেমন সুন্দর ঠিক তেমনি মার্জিত। তাই কেউ যদি এই বাইকটি কিনতে চান তবে আমি বলবো বাজারের অন্য সব ১০০ সিসি বাইকের তুলনাই এই বাইকটি দাম হিসেবে ভাল। এর ইঞ্জিন পারফমেন্সও খুব ভাল।

Rate This Review

Is this review helpful?

Rate 1
Rate 2
Rate 3
Rate 4
Rate 5


More reviews on TVS XL 100
    7 Reviews found
  • টিভিএস এক্সএল১০০ ৫,০০০কিমি ব্যবহার অভিজ্ঞতা - ফারহানা আকতার
    2020-02-13
    আমি ফারহানা আক্তার। বলতে পারেন চাকুরির ক্ষেত্রে যাতায়াতের জন্যই বাইক আমার বেশি প্রয়োজন। শুধু যে চাকুরির কাজে তা ঠিক না আমার বয়সটাও বেশ হয়েছে তাই একটু এদিক ওদিক ঘোরাঘুরি করার কাজেও টিভিএস এক্স এল ১০০ সিসি বাইকটি আমার অতি প্রয়োজনীয় একটি বাহন। এটি আমার জীবনের প্রথম বাইক। আগে এই ধরনের বাইক গুলোতে বাইসাই...
    English Bangla
  • টিভিএস এক্সএল১০০ ৩,০০০কিমি রাইডিং অভিজ্ঞতা - আয়ুব আলী
    2019-12-27
    আমার ব্যক্তিগত যাতায়াতের জন্য যে মোটরসাইকেলটি কিনেছি তার নাম হচ্ছে টিভিএস এক্স এল ১০০ সিসি। এটি আমি ৮ মাস যাবত ব্যবহার করেছি এবং প্রায় ৩০০০ কিমি পথ চালিয়েছি। এর আগে আমি দেড় মাসে ৪০০ কিমি পথ চালিয়ে আমার অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করছিলাম। আজকে আমি আবারো ৮ মাসে ৩০০০ কিমি চালিয়ে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি ...
    English Bangla
  • টিভিএস এক্সএল১০০ মোটরসাইকেল রিভিউ – আয়ুব আলী
    2018-10-19
    প্রথমেই আমি আমার পরিচয় দিয়ে শুরু করছি। আমার নাম মোঃ আয়ুব আলী। পেশায় কৃষক। আমার ব্যক্তিগত যাতায়াতের জন্য আমি একটি মোটরসাইকেল কিনেছি। আমার মোটরসাইকেলটির নাম টি ভি এস, এক্স এল ১০০ সিসি। এই মোটরসাইকেলটি আমি “খাঁন মটরস” পুঠিয়া, রাজশাহীর একটি শোরুম থেকে কিনেছি। এটি আমি প্রায় দেড় মাস যাবত ব্যবহার করছি কোন প্...
    English Bangla
  • টিভিএস এক্সএল১০০ মোটরসাইকেল রিভিউ - সজিব
    2018-08-01
    জংশেন ১০০ সিসি বাইক দিয়ে আমার বাইক চালানোর হাতে খড়ি। সেই বাইকটা আমি অনেক দিন ব্যবহার করেছিলাম। এরপরে ভাবলাম যে বাইকটা বিক্রি করে দিবো।আমার কর্মস্থলে বেশি সময় দিতে হয় বলে বাইক ঠিক মত চালানো হয় নাই এই সিদ্ধান্ত নিলাম যে বিক্রয় করে দিবো। বাইক বিক্রি করে দিয়ে আসলেই বুঝতে পারলাম যে শহরের মানুষের জন্য বাইক ...
    English Bangla
  • টিভিএস এক্সএল১০০ মোটরসাইকেল রিভিউ - রবিউল ইসলাম
    2018-05-31
    আমাদের দেশে বিভিন্ন ডিজাইনের বাইক রয়েছে। বাইক কেনার আগে সবাই ডিজাইন ও সিসি লিমিট দেখে কিনেন। বিভিন্ন দাম ভেদে সিসি লিমিটগুলো তৈরী করা হয়। খুব অল্প সময়ে দ্রুত যাতায়াতের জন্য বাইকের তুলনা হয় না। আমার বাইকের নাম টিভিএস এক্স এল- ১০০ সিসি। এই বাইকটি বিশেষ করে বয়স্ক মানুষ খুব বেশি পছন্দ করে। গ্রামে ও শহরে উ...
    English Bangla
  • টিভিএস এক্সএল১০০ মোটরসাইকেল রিভিউ - আমিরুল ইসলাম
    2017-12-27
    আমি মোঃ আমিরুল ইসলাম, আমার বাসা রাজশাহীতে। আমি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। তাই বলতে পারেন ব্যবসার কাজের জন্যই বাইক আমার বেশি প্রয়োজন। শুধু যে ব্যবসার কাজে তা ঠিক না আমার বয়সটাও বেশ হয়েছে তাই একটু এদিক ওদিক ঘোরাঘুরি করার কাজেও এই বাইকটি আমার অতি প্রয়োজনীয় একটি বাহন। বলতে গেলে এটিই আমার জীবনের প্রথম বাইক টিভ...
    English Bangla
  • 2017-10-02
    টিভিএস বর্তমানে বাংলাদেশে স্বনামধন্য একটি মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড। তারা বেশ আগে থেকেই বাংলাদেশে সুনামের সাথে ব্যবসা করে আসছে এবং গ্রাহকদের সন্তুষ্টি অর্জন করছে। তাদের প্রোডাক্টগুলো গ্রাহকদের সাধ্যের মধ্যে এবং গুনে মানে বেশ ভালো। ইন্ডিয়ান এই কোম্পানীর বাইকগুলোতে রয়েছে কিছু অসাধারণ ডিজাইন। ঠিক তে...
    English Bangla



Filter
Brand
CC
Mileage
Price

Advance Search
Motorcycle Brands in Bangladesh

View more Brands