Select your city
Search



Advantages and disadvantages of ceramic coating
2018-06-10 Views: 5760

বাইকে সিরামিক কোটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ


Advantages-and-disadvantages-of-ceramic-coating

আধুনিক যুগে আমরা মোটরসাইকেল ও গাড়ি প্রেমিক মানুষেরা আমাদের বাহনগুলোকে আরও সুন্দর করার জন্য কিংবা অন্যের কাছে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য বিভিন্ন কিছু করার চেষ্টা করে থাকি।বাহনের সৌন্দর্য আরও ফুটিয়ে তোলার জন্য আমারা বিভিন্ন রং বা কোটিং আমাদের বাহনগুলোতে ব্যবহার করে থাকি এবং এর ফলে আমাদের বাহনগুলো আরও বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠে। আমরা যদি সেই রং কিংবা কোটিং নিয়ে বল তবে সম্প্রতি সাড়া বিশ্বে একটি নতুন পেইন্টিং দেখা যায় যার নাম হচ্ছে সিরামিক কোটিং। খুব সম্প্রতি এটা বাংলাদেশে প্রবেশ করতে যাচ্ছে,বিশেষ করে বাইকের জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়াবে এবং আমরা যদি লক্ষ্য করি তবে দেখতে পাই যে আমাদের দেশে চলমান সকল ৪ চাকার বাহনে এই সিরামিক কোটিং ব্যবহার করা হয় । বাইকের নতুন এই সিরামিক কোটিং আবার ন্যানো-কোটিং নামেও পরিচিত। অটো মোবাইল শিল্পে সবচেয়ে বড় উদ্ভাবন হচ্ছে এই সিরামিক কোটিং যা গাড়ি কিংবা বাইকের বাইরের ও ভেতরের সুরক্ষার জন্য ন্যানো-প্রলেপ। সিরামিক কোটিং একটি বাহনের বাইরের রঙকে একদম নতুনের মত রাখতে সাহায্য করে। নতুন রঙ্গয়ের এই প্রযুক্তি আবার কিছু সুবিধা-অসুবিধা রয়েছে এবং এই সুবিধা-অসুবিধাগুলো ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই জানা প্রয়োজন।


Advantages-and-disadvantages-of-ceramic-coating

সিরামিক কোটিং কি?
সিরামিক কোটিং হচ্ছে এক প্রকার লিকুয়িড পলিমার যেটা বাহনের বাইরের অংশে প্রয়োগ করা হয়। কোন বাইক বা গাড়ি তৈরির সময় তাতে যেই পেইন্টটি ব্যবহৃত হয় সিরামিক কোটিং পরবর্তীতে তার সাথে যোগ করা হয়।





যখন সিরামিক কোটিং কোন বাহনে ব্যবহার করা হয় তখন তা পুরোনো রং এর সাথে মিশে কেমিক্যাল বন্ধন তৈরি করে । একবার কোটিং করলে এটা শুধুমাত্র ঘষে অপসারণ করা ছাড়া সম্ভব না , এছাড়াও অন্য কোন ক্যামিক্যাল ব্যবহার করে এটা অপসারণ সম্ভব নয় । আশা করা যায় কোটিংটি যদি সফলভাবে স্থাপন সম্পন্ন হয় তবে সেটা আজীবনের জন্য থেকে যাবে।

সিরামিক ম্যাটারিয়ালস হচ্ছে অজৈব, অধাতব, অনেকটাই স্ফটিক্যাল অক্সাইডের কাছাকাছি , নাইট্রাসাইড বা কারবাইড উপাদান। কিছু উপাদানগুলোর মধ্যে যেমন কার্বন বা সিলিকন যেটা সম্ভবত সিরামিক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। সিরামিক ম্যাটারিয়ালস একটি বড় গুনাগুন হচ্ছে ভঙ্গুর , শক্ত এবং ঘনত্ব বেশি । ভিন্ন ভিন্ন সুবিধা নিয়ে দুই ধরনের কোটিং অটো মোবাইল সেক্টরে সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে এবং সেগুলো নাম হচ্ছে সিরামিক প্রো এবং অপ্টি-কোট প্রো প্লাস । এই দুইটা এখন সহজলভ্য। চলুন এক পলক দেখে নেই যে কেন সিরামিক কোটিং অটোমোবাইল সেকশনে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে চলেছে।

সিরামিক কোটিং এর সুবিধা

সেরা পেইন্ট সুরক্ষার মধ্যে একটি
এই কোটিং টা মূলত বাহনের উপরিভাগে প্রতিরক্ষামূলক এবং শক্তিশালী আবরণী তৈরি করে এবং যে সকল বাইরের জিনিস দ্বারা ক্ষতি সাধন হতে পারতো সেগুলো সে প্রতিহত করে। বেশিরভাগ সময়ে বাহনকে বিভিন্ন জিনিসের আঘাত সম্মুখিন হতে হয় যেমন স্ক্র্যাচ,কাদা, ধুলাবালি এবং অন্যান্য বিষয় যা রাস্তায় চলাচলের সময় এড়িয়ে চলা সম্ভব নাও হতে পারে। এই কোটিং বাহনের রং এর সর্বাত্মক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে এবং নতুন অবস্থায় যেমন রং এর উজ্জলতা ছিলো ঠিক সেরকমই রাখার চেষ্টা করে।

সিরামিক কোটিং টেকসই
সিরামিক পেইন্ট কোটিং হচ্ছে সাধারন রং এর তুলনায় অনেক ভালো যেটা বাহনের উপরিভাগকে রক্ষা করার জন্য ব্যবহার করা হয়। গতানুগতিক কোটিংগুলো সাধারণত বেশিদিন টেকসই হয় না এবং বিভিন্ন আবহাওয়ায় সেগুলো নষ্ট হয়ে যায় যেমন বৃষ্টি, পাখির মলত্যাগ, এসিড জাতীয় উপাদান ইত্যাদি। কিন্তু সিরামিক কোটিং প্রয়োগ করা থাকলে যেটা ন্যানো-কোটিং নামে পরিচিত সেটা অনেক বছর টিকে থাকে।

বাহন সর্বদা পরিষ্কার থাকে
বাহনে সিরামিক কোটিং বা ন্যানো-কোটিং খুব সহজেই পরিষ্কার করা যায়। সিরামিক কোটিং দ্বারা আবৃত বডি প্যানেল্গুলো অনেক স্মুথ হয় এবং স্ক্রাচ পরা থেকে অনেক বিরত থাকে এবং এই জন্য বাহনে ময়লা লেগে থাকার কোন সুযোগ নেই। একটা কাপড়ের দ্বারা পরিস্কারের মাধ্যমে বাহনের আগের মত উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব।

পলিশের থেকে উত্তম হচ্ছে সিরামিক কোটিং
পলিশ কিংবা ওয়াক্সিং এর মাধ্যমে বাহনের অতিরিক্ত উজ্জ্বল্ দেখা যায় যা একদম নতুনের মতো। তবে এটা বোঝা যায় যে সিরামিক রং ব্যবহার করার পরে ওয়াক্সিং করলে সেটা স্থায়ী হয়ে যায় এবং খুব দ্রুত রং নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে। অন্যদিকে ওয়াক্সিং এবং সিরামিক কোটিং প্রয়োগ করতে অনেক সময় লাগে কিন্তু যখন স্থায়িত্বের কথা আসে তবে অবশ্যই বলতে হয় যে সিরামিক কোটিং পলিশ কিংবা ওয়াক্সিং এর তুলনায় অনেক ভালো। ভালো ফিনিশিং এবং উজ্জ্বলতা বাহনের আকর্ষণ আরও বৃদ্ধি করে।

অর্থের সঠিক ব্যবহার
আমাদের বাহনগুলোতে সিরামিক কোটিং ব্যবহার অনেক সময় সাপেক্ষ একটি ব্যাপার কিন্তু এটা সঠিকভাবে স্থাপনে মাধ্যমে আমাদের সময় ও শ্রম বৃথা যাবে না । ওয়াক্সিং বা পলিশিং অনেক সময় নেয় এবং সময় ও টাকা দুটাই অপচয় করে । আপনার যদি বাহনের উজ্জ্বলতা বেশি দরকার হয় তবে কেন দীর্ঘস্থায়ী সমাধান বাদ দিয়ে ওয়াক্সিং করতে যাবেন।

দেখতে অনেক সুন্দর লাগে
এই কোটিংটা শুধু বাইরের খারাপ আবরন থেকে বাহন কে রক্ষা করে না বরং বাহনের বাইরের আবরন পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি বাহনের উপরিভাগকে আরও চকচকে করে তোলে যা দীর্ঘস্থায়ী হয়। তাই উপরের সকল সুবিধা বাদেও সিরামিক কোটিং আপনার বাহনকে আরও দেখতে সুন্দর এবং আর কয়েক বছরের জন্য প্রাণবন্ত করে তুলবে।

সিরামিক কোটিং এর অসুবিধা

খরচ বেশি
এমনি সাধারণ রং এর থেকে সিরামিক কোটিং এর জন্য আপনাকে একটু বেশি খরচ করতে হবে। অন্যান্য সকল সুবিধার পাশাপাশি এই সিরামিক কোটিং এর খরচটা একটু বেশি।

সময় সাপেক্ষ ব্যাপার
বাহনে সিরামিক কোটিং ব্যবহার সময় সাপেক্ষ একটি বিষয়। যদি কেউ তার বাইক কিংবা গাড়ীতে সিরামিক কোটিং লাগাতে চান সেক্ষেত্রে তাকে তার বাহন দুই থেকে তিন দিনের জন্য গ্যারেজে রেখে যেতে হবে। এটা দীর্ঘ একটা প্রক্রিয়া এবং ভালোভাবে প্রয়োগের মাধ্যমে অনেক দিন টিকে থাকে।

দক্ষ হাতের প্রয়োজন
সিরামিক কোটিং বা পেইন্টিং বাহনের প্রয়োগের ক্ষেত্রে দক্ষ বা পেশাদার হাত প্রয়োজন। যেহেতু আমরা ইতমধ্য্যেই জানলাম যে এই কোটিং এ ক্যামিক্যাল এবং অজৈব ম্যাটারিয়ালস থাকে যার জন্য দক্ষ হাতের দরকার হয়। এটা যদি অদক্ষ হাত দ্বারা প্রয়োগ কড়া হয় তবে আপনার বাহনের আসল উজ্জ্বলতা হারিয়ে যাবে।

প্রাপ্যতা এবং বিশেষজ্ঞ দ্বারা প্রয়োগ
যেহেতু এই প্রযুক্তিটা বেশির ভাগ বাহন সহ বাইরের দেশে ব্যবহার করা হয় তাই এটা সব জায়গায় পেতে একটু সময় লাগে। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে যে এটা পাবার পর ভালো স্পেশালিষ্ট দ্বারা প্রয়োগের মাধ্যমে ভালো ফল পাওয়া সম্ভব।

সর্বোত্তম নিরাপত্তা এবং রং এর উজ্জ্বলতাকে আরও দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য সিরামিক কোটিং পছন্দ করা সর্বত্তোম।সম্প্রতি এটা মোটরসাইকেলগুলোতেও ব্যবহার করতে দেখা যায় কারণ সকলেই চায় যে তার বাহন অনেক দিন ব্যাপী উজ্জ্বলতা বহন করুক। সিরামিক কোটিং বিভিন্নজন তাদের বাইকে ব্যবহার করে অনেক ভালো সাড়া পেয়েছে এবং তারা এই প্রডাক্টের দাম নিয়ে কোন শংকা রাখে না।
Rate This Tips

Is this tips helpful?

Rate count: 26
Ratings:
Rate 1
Rate 2
Rate 3
Rate 4
Rate 5
Bike Tips
  • বাইক ট্যূরের নিয়মাবলী
    2018-08-06
    Bike-tour-guidelines আমরা অনেকেই নতুন করে বাইকিং কমিটিতে যুক্ত হচ্ছি তাই জানি না একটি ট্যুরে করণীয় কি, কি কি বিষয় লক্ষ্য রাখা উচিত, কি কি বিষয় এড়িয়ে চলা উচিত,কিভাবে সফল ট্যুর দেয়া যায়। আজ আমি আমার ক্ষুদ্র অভিজ্ঞতা থেকে ট্যুর বিষয়ক কিছু কথা বলব। দ...
    details English
  • বাইকে সিরামিক কোটিং এর সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ
    2018-06-10
    Advantages-and-disadvantages-of-ceramic-coating আধুনিক যুগে আমরা মোটরসাইকেল ও গাড়ি প্রেমিক মানুষেরা আমাদের বাহনগুলোকে আরও সুন্দর করার জন্য কিংবা অন্যের কাছে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য বিভিন্ন কিছু করার চেষ্টা করে থাকি।বাহনের সৌন্দর্য আরও ফুটিয়ে তোলার জন্য আম...
    details English
  • কিওয়ে আরকেএস ১০০ ভি৩ নাকি আরকেএস ১২৫, কোনটা কিনবেন?
    2018-05-28
    Keeway-RKS-100-v3-or-RKS-125.-Which-one-should-buy ব্যক্তিগত বাহন হিসেবে মোটরবাইক ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সময়ের সাথে সাথে। আপাত দৃষ্টিতে দেখে মনে হতে পারে বাইক শুধুমাত্র যুবক শ্রেনীর বাহন কিন্তু প্রকৃত সত্য হল এটি যেকোন বয়সের ব্যক্তির সাথে সমানভাবে মানানসই ...
    details English
  • হাইওয়েতে মোটরসাইকেল চালানোর গুরুত্বপূর্ন টিপস
    2018-05-15
    Important-tips-for-bike-riding-at-highway অনেকেই অনেক বছর ধরে বাইক চালায়।আমার বাইকিং জীবন মাত্র ১ বছর ২ মাস। তাই বুঝতেই পারছেন আমি শিশু বাইকার যার জন্ম ১ বছর ২ মাস। এই এক বছরে আমার প্রিয় বাইকটি নিয়ে আমি ১০৭০০ কি.মি পাড়ি দিয়েছি। এর মধ্যে আমি ময়মনসিংহ, শ্রীমঙ্গল, ...
    details English
  • কোন মোটরসাইকেলে কেমন মাইলেজ পাবেন?
    2018-04-24
    What-mileage-which-motorcycle-provides সময় পরিবর্তনের সাথে সাথে দক্ষিন এশিয়াসহ বাংলাদেশে মোটরসাইকেল বিশাল জনপ্রিয়তা অর্জন করে চলেছে। আমাদের মত দেশে যেখানে ট্র্যাফিক একটা বিরাট সমস্যা এবং গ্রামের রাস্তায় চলাচল করাও একটা সমস্যা, তাই এই সমস্যা দূর করার জন্...
    details English




Filter
Brand
CC
Mileage
Price

Advance Search
Motorcycle Brands in Bangladesh

View more Brands